Wednesday , January 17 2018
Home / Sexual Health / স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে?

স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে?

স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে
বিষয় হলো এর ধরাবাধা কোনো সময় নেই। কারণ এটি বলতে গেলে পুরুষের সক্ষমতার উপরই অধিকাংশ নির্ভরশীল। তবে বিশেষজ্ঞরা এর সময়সীমার প্রতি কিছুটা ইঙ্গিত করেছেন তা হলো : সর্বোত্তম যৌন মিলনের সময়-ব্যপ্তি ৭ (সাত) থেকে ১৩ (তের) মিনিট পর্যন্ত হয়ে থাকে। বলা হয় ৩ (তিন) থেকে ৭ (সাত) মিনেটের যৌনমিলন মোটের উপর “পর্যাপ্ত” কিন্তু ৩ মিনেটের কম সময় “খুব কম সময়” এবং ১৩ মিনিটের বেশি সময় মিলন “খুব লম্বা সময়”। গবেষকরা প্রমান পেয়েছেন – ৩ (তিন) মিনেটের ভালবাসাপুর্ন মিলনই ‘পর্যাপ্ত’।

স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে?
একটা বিষয় মনে রাখবেন :-

যৌন তৃপ্তির জন্য লিঙ্গের আকার মুল বিষয় নয়। প্রধান বিবেচ্য বিষয় হচ্ছে মিলনে এবং সিঙারে আপনার কারুময়তা। আপনি যত বেশি সৃষ্টিশীল পদ্ধতিতে স্ত্রীকে “অন” করবেন সে তত বেশি আপনার পার্সোনলিটির প্রতি আবেগী হবে।

স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে?

নারী পুরুষের নানা প্রকার যৌন ব্যাধি প্রসঙ্গে :-
দ্রুত বীর্যপাত, পুরুষত্বহীনতা, ধ্বজভঙ্গ, স্বপ্নদোষ, স্পারম্যাটোরিয়া, হস্তমৈথুন অভ্যাস ও এর কুফল, লিঙ্গের অসারতা, সিফিলিস, গনোরিয়া, প্রসাবে জ্বালাপোড়া, নারীদের জরায়ু সংক্রান্ত ব্যাধি, ঋতুস্রাবের অনিয়মিততা, লিউকোরিয়া, স্তন টিউমার/ক্যান্সার, বন্ধ্যাত্ব ও অন্যান্য স্ত্রীরোগসমূহের সর্বাধিক সাফল্য মন্ডিত এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন চিকিত্সা নিশ্চিত করে থাকে একমাত্র হোমিওপ্যাথি মেডিকেল সাইন্স। তাই এ সকল সমস্যা নির্মূলে আপনার নিকটস্থ ভালো এবং অভিজ্ঞ একজন হোমিওপ্যাথের সাথে যোগযোগ করে চিকিত্সা নিন, প্রপার ট্রিটমেন্ট নিলে আশা করি পরিপূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠবেন।
 

স্বামী স্ত্রীর সহবাস বা যৌন মিলনের স্থায়িত্ব কত সময় হতে পারে?

আরেকটা বিষয় জেনে রাখা দরকার, হোমিওপ্যাথি যেনতেন কোনো চিকিত্সা বিজ্ঞান নয়, মেডিকেল কলেজের সার্টিফিকেট নিয়ে ডাক্তার হওয়া যায় কিন্তু যথাযথ হোমিওপ্যাথ হতে হলে তার সাথে আরো কিছু করতে হয়। এই বিজ্ঞান সঠিকভাবে আয়ত্ব করতে অনেক সাধনার প্রয়োজন, যা যথাযথরূপে অর্জন করতে ডিগ্রীধারী হাওয়া সত্তেও অনেকেই ব্যর্থ হন। যার কারণে দেখা যায় মহিলা ও পুরুষদের জটিল ব্যাধিসমূহ, লিভার সিরোসিস, ক্যান্সার, কিডনির ক্রিটিকাল মুহুর্তে তার যথাযথ চিকিত্সা ইত্যাদি দিতে অনেক হোমিওপ্যাথই অপারগতা প্রকাশ করে থাকেন। অথচ সেই জন্মলগ্ন থেকেই অভিজ্ঞ হোমিওপ্যাথদের প্রপার ট্রিটমেন্ট এর আওতায় আসার কারণে অনেক জটিল শারীরিক সমস্যাগ্রস্থ মানুষও নতুন জীবন ফিরে পেয়েছেন। আমাদের দেশেও এ রকম স্বনামধন্য অনেক হোমিওপ্যাথ রয়েছেন যাদের চিকিত্সার কারুময়্তার কারণে বিরোধী পক্ষের নানা অপপ্রচার সত্তেও বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথি জনমানুষের মনে স্থান করে নিয়েছে।
loading...

About Admin

Check Also

যে কারণে স্তন এর সৌন্দর্য হারাচ্ছেন

বক্ষযুগলকে সুন্দর রাখতে মহিলাদের চেষ্টার অন্ত নেই, অথচ প্রতিনিয়ত তাঁদেরই কিছু ভুলে ক্রমশ সৌন্দর্য হারাচ্ছে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *