Friday , 12 April 2024

গোলাপ জলের ব্যবহার

গোলাপ জল নিয়ে আপনি কতটুকু ব্যাখ্যা দিতে পারবেন? কিছু কিছু প্রসাধনী রয়েছে, যার কোনো বিকল্প হয় না। এমনই একটি উপাদান হলো গোলাপ জল, জানান লি-রেন মেকওভার স্যালনের স্বত্বাধিকারী ও রূপবিশেষজ্ঞ ঊর্মিলা হোসেন। যেকোনো ধরনের ত্বকেই গোলাপজল ব্যবহার করা যায়। উজ্জ্বল ও নরম রাখার পাশাপাশি ত্বককে প্রাণবন্ত করে তোলে গোলাপজল। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও ভিটামিন থাকায় চোখের নিচে ফুলে যাওয়া ও ত্বকের বলিরেখা দূর করতেও এটি বেশ কার্যকর।

গোলাপ
গোলাপ জলের ব্যবহার
  • শুষ্ক ত্বকের জন্য গোলাপজল
  • শীতে প্রায় সব ধরনের ত্বকেরই প্রয়োজন হয় আর্দ্রতা। শুষ্ক ত্বকের জন্য গোলাপজল বেশ উপকারী ময়েশ্চারাইজার। বাড়িতে বানানো গোলাপজল মুখে স্প্রে করুন, আলতো হাতে মালিশ করুন। প্রতি রাতে অনুসরণ করুন এই রুটিন। এ ছাড়া ময়েশ্চারাইজারের সঙ্গেও গোলাপজল মিশিয়ে নিতে পারেন। তাহলে সহজেই ত্বকের সঙ্গে মিশে যাবে গোলাপজল।
  • গোলাপজল সহজেই ত্বকের সঙ্গে মিশে যায়। মডেল: কথা
    গোলাপজল সহজেই ত্বকের সঙ্গে মিশে যায়। মডেল: কথাছবি : সুমন ইউসুফ
    সংবেদনশীল ত্বকের জন্য গোলাপজল
  • যাঁদের ত্বক সংবেদনশীল, তাঁদের জন্য গোলাপজলই সেরা টোনার। গ্লিসারিন ও লেবুরসের সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে রাখুন। দিনের যেকোনো সময়ে ত্বকে মিশ্রণটি ব্যবহার করতে পারেন। আপনার ত্বক হবে নরম ও উজ্জ্বল।
  • তৈলাক্ত ত্বকের জন্য
  • অর্ধেক কাপ গোলাপজলের সঙ্গে মেশান ১ চা-চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার। তুলার বলের সাহায্যে এই মিশ্রণ মুখে লাগান। কিছুক্ষণের জন্য রেখে ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়া যেকোনো প্যাকের সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।
  • পুরো শরীরকে দিন সতেজতা
  • সাধারণত যে লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করেন, তার সঙ্গে সামান্য গোলাপজল মিশিয়ে শরীরে লাগাতে পারেন। এ ছাড়া পানিতে গোলাপজল মিশিয়ে গোসল করলে এর ঘ্রাণেও আপনি সতেজ বোধ করবেন।
  • হাত-পা ও চোখের যত্নে
  • শীতকালে ত্বকের যত্নে একটি বড় ভূমিকা রাখে গোলাপজল ও গ্লিসারিন। হাত-পা ফাটা রোধে দারুণ কাজে দেয় মিশ্রণটি। এ দুটি একসঙ্গে মিশিয়ে লাগালে ত্বক থাকে সুন্দর ও মসৃণ। ক্লান্তি ও ঘুমের ঘাটতির কারণে চোখের নিচে অনেকেরই ফোলা ভাব থাকে। চোখের নিচের চামড়া পাতলা হওয়ার কারণে এই ফোলা ভাব সহজেই বোঝা যায়। এ ক্ষেত্রে গোলাপজলের বোতল ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে নিতে হবে। তুলা দিয়ে ভিজিয়ে তা চোখের নিচে লাগান। স্বস্তির সঙ্গে সঙ্গে ফোলা ভাবও কমে আসবে।
  • চুলের যত্নে গোলাপজল
  • চুলের কন্ডিশনার হিসেবেও গোলাপজল ব্যবহার করতে পারেন। চুলে শ্যাম্পু করার পর ১ মগ পানিতে ১ কাপ গোলাপজল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। গোলাপজল দেওয়ার পর চুলে আর পানি লাগাবেন না। এভাবেই চুল মুছে শুকিয়ে ফেলুন। গভীর থেকে চুলকে নরম করা এবং উজ্জ্বলতা বাড়াতে গোলাপজলের ভূমিকা অনেক।

বাড়িতেই বানান গোলাপজল

গোলাপের পাপড়িগুলো প্রথমে ছিঁড়ে নিন। চুলায় পরিমাণমতো পানি ফুটতে দিন। পানি ফুটে গেলে তাতে গোলাপের পাপড়িগুলো ছেড়ে দিন। চুলা বন্ধ করে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন ১৫ থেকে ২০ মিনিট। এরপর ছেঁকে পানি বের করে নিলেই তৈরি হয়ে গেল গোলাপজল। বোতল বা মুখবন্ধ বয়ামে সংরক্ষণ করুন। চাইলে ফ্রিজে অথবা ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায়ও রাখতে পারেন।

শরীরের অবাঞ্চিত লোম রিমুভ করার জন্য উপযুক্ত পদ্ধতি

ফেসবুক পেজ

আমাদের সাইটে কোন প্রকার অশ্লীল আর্টিকেল দেওয়া হয় না।

মূলত যৌন জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করে তোলার জন্য জানা অজানা অনেক কিছু তুলে ধরা হয়।

এরপরও আপনাদের কোর প্রকার অভিযোগ থাকলে Contact Us মেনুতে আপনার অভিযোগ জানাতে পারেন,

আমরা আপনাদের অভিযোগ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করব।

Spread the love

Check Also

ঘি

ঘি কী উপকার ত্বকে ? দেখে নিন

উপকারি ঘি এর কী উপকার ত্বকে? ঘি তে ভিটামিন এ, ভিটামিন ডি ও ভিটামিন সি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *