Friday , 12 April 2024

সঠিক অন্তর্বাস ব্যবহারের নিয়ম

নারীর অন্তর্বাস হলো ব্রা ,প্যান্টি আরা পুরুষের অন্তর্বাস হলো স্যান্ডো গেঞ্জি-বক্সার ইত্যাদি।বেশিরভাগক্ষেত্রে দেখা যায় পুরুষেরা তাদের অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে যথেষ্ট সচেতন হলেও নারীরা এক্ষেত্রে অনেক উদাসীন।নারীরা তাদের স্বাস্থ্যের থেকে ফ্যাশনের দিকে বেশি সচেতন।এটা যুগ যুগ ধরে চলে আসছে।তবে এটি ঠিক নয়।কারণ আগে লক্ষ্য দেওয়া উচিত স্বাস্থ্যের উপর।তাই Online Bangla Healh আপনার ডক্টরের আজকের আর্টিকেলটা নারী ও পুরষদের অন্তর্বাস ব্যবহারের গুরুত্বের উপর, চলুন শুরু করা যাক।

১। অন্তর্বাসে যেটা ব্যবহার করুন না কেন, সেটি যেন অবশ্যই হয় সঠিক সাইজের।যদি গেঞ্জি ব্যবহার করেন, তবে সেটি যেন খুব বেশি ঢিলা বা খুব বেশি টাইট না হয়।কোনভাবে যদি আপনার অন্তর্বাস সঠিক সাইজের না হয়,তবে অন্তর্বাসের উদ্দেশ্য মাটি হয়ে যায়।গোপন অঙ্যগের জন্য যদি অধিক টাইটের অন্তর্বাস পরিধান করেন করে তবে গোপন অঙ্গ সঠিক সাপোর্ট পায় না আবার বেশি টাইট হলে অধিক চাপে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।তাছাড়া এরজন্য আপনার ওজনের ও তারতম্য পরিলখিত হয়।

২। আবার ও বলছি অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে ফ্যাশানের কোন গুুরত্ব নেই বললেই চলে এক্ষত্রে আরামটাই মুখ্য।অন্তর্বাসের এই পোশাকটি যেহেতু সারাদিন ব্যবহার করা হয় তাই এটি আরামদায়ক হওয়া যেকোনভাবেই প্রথম শর্ত।সব দোকানের অন্তর্বাস কেনার সুযেগি সমান নয়। যে দোকানে অন্তর্বাস কেনার সুযোগ সুবিধা একটু বেশি সেইটা তেকে কেনা উচিত,তবে প্রথমেই অনেক না কিনে প্রথমে পরীক্ষামূলক অল্প কিছু কিনে দেখা উচিত।আরামদায়ক হলে পরে অনেকগুলো কিনুন।

৩।ফেব্রিক অন্তর্বাসের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।মরে রাখবেন ভুল ফেব্রিকে শুধু অস্বস্তি হিবেই না, এর ফলে আপনার ত্বকেও দেখা দেবে নানান রকম সমস্যা। অন্তর্বাসে খুব বেশী মোটা কাপড় পরিধান করা ঠিক না। এতে পোশাকটি ভিজে গায়ের সাথে লেপটে থাকবে এবং ব্যাকটেরিয়া জন্মে ত্বকের নানান রকম অসুখে আক্রান্ত হবেন আপনি। খুব বেশী পাতলা অন্তর্বাসও পরিধান করবেন না।

৪। অন্তর্বাসের ফিতা শরীরের সাথে যদি খুব চেপে থাকে,তবে ব্যাথা পেতে পারেন আর ব্যাথা পাওয়া মানেই আপনার অন্তর্বাসটি ভুল মাপের বা সাইজের। তাই এটি পরিত্যাগ করাই শ্রেয়।

৫।অধিক সময় যাবৎ একই অন্তর্বাস ব্যবহার করবেন না। কোন ভাবেই একই অন্তর্বাস ৬ মাসের বেশী ব্যবহার না করাই উত্তম।
৬। অন্তর্বাস ব্যবহারের পর প্রতিদিন ধুয়ে ফেলুন । যারা খুব বেশী ঘামেন তাঁরা দিনে ২ বার পরিবর্তন করুন। একই অন্তর্বাস পর পর ২ দিন পরিধান করবেন না।

৭। রাতের বেলা অন্তর্বাস পড়ে যারা ঘুমান তারা এই অভ্যাস পরিত্যাগ দিন।রাতের বেলা অন্তর্বাস পরিধানে শরীরের কোন উপকার হয় না বরং অন্তর্বাস ছাড়া রাতে ঘুমালে শরীর আরাম পায়।

৮। যত বড় স্টোর থেকেই অন্তর্বাস কিনুন না কেন, কখনোই না ধুয়ে পরিধান করবেন না। অবশ্যই দোকান থেকে কেনার পর ভালো করে ধুয়ে তারপর পরিধান করুন।

৯। প্রতিবার অন্তর্বাস ধোয়ার পর জীবাণুনাশক দ্রব্যে ভিজিয়ে পরিষ্কার করে নিন। ডেটল বা অন্য যে কোন জীবাণুনাশক পণ্য ব্যবহার করুন।

১০। সিনথেটিক কাপড়ের অন্তর্বাস পরিহার করুন। সুতি বা প্রাকৃতিক তন্ত হতে তৈরি এমন অন্তর্বাস বেছে নিন। অন্তর্বাস কেনার পর ভেতরের ট্যাগগুলো খুলে ফেলে দিন। এতে অনেক আরামদায়ক ভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।

Spread the love

Check Also

যৌন

যৌন নিপীড়নে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের চিত্র

যৌন নিপীড়নের অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাবলিক হেলথ অ্যান্ড ইনফরমেটিকস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *